মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

কালাইয়া ইউনিয়নে হাসপাতাল/স্বাস্থ্য কেন্দ্র

   সাহেদা - গফুর- ইব্রাহিম জেনারেল হাসপাতাল

       কালাইয়া , বাউফল , পটুয়াখালী ।

           স্থাপিত: ২০০৭ ইং

        প্রতিষ্ঠাতা: ফিরোজ আলম           

 

পটুয়াখালী জেলার বাউফল উপজেলার একটি অজপাড়া গাঁয়ের নাম কালাইয়া। যার চারপাশনদী ও চর দ্বারা বেষ্টিত। এখানে বসবাসরত প্রায় ২০/৩০ হাজার মানুষপ্রাকৃতিক দুর্যোগ ও দারিদ্রতার কাছে অসহায়। তাই প্রায় সকল মৌলিক অধিকারথেকেও বঞ্চিত এই মানুষগুলো। আর এই সুবিধা বঞ্চিত মানুষগুলোর উন্নত চিকিৎসাসেবা প্রদানের লক্ষ্যে বাউফল উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আব্দুলগফুর মিয়ার ছেলে জাপানের ডেমোত্র্যাটিক পার্টির পালামেন্টারী কমিটিরঅনারারী ডিরেক্টর এবং মার্কেন্টাইল ব্যাংক ও আরটিভির পরিচালক জনাব ফিরোজআলম তার মা ও বাবার নামে এখানে প্রতিষ্ঠা করেন শাহেদা -গফুর- ইব্রাহীমজেনারেল হাসপাতাল। যা বর্তমানে ৩০ শষ্যা বিশিষ্ট হলেও ২০১৭ সাল নাগাদ এটারূপ নেবে ১০০ শষ্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে। ২০০৭ সালে ২১মে প্রায় ৭ একর জমিরউপরে এ হাসপাতালটির নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন বাংলাদেশডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি ডাঃ এ. কে আজাদ খাঁন। প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যায়েহাসপাতালটির নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ করা হয় এবং গত ১৯ এপ্রিল থেকেহাসপাতালটির চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু হয় ,বিনামূল্যে গরীব মানুষদের চক্ষুচিকিৎসা সেবা প্রদানের মাধ্যমে। নিয়মিত চিকিৎসা সেবার পাশাপাশি প্রতিশুক্রবার এখানে দেশের খ্যাতিমান বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা চিকিৎসা পরামর্শ ওজটিল রোগের চিকিৎসা প্রদান করা হয়ে থাকে, যা এলাকার সাধারণ মানুষের কাছেস্বপ্নের মত। এ হাসপাতালে রয়েছে উন্নতমানের জেনারেল বেড, কেবিন, শীতাতপনিয়ন্ত্রিত অপারেশন থিয়েটার ও আইসিসিইউ বা নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র।হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা চরমিয়া জানের সফুরা বেগম বলেন- আমাগো অসুখবিসুখ হইলে ভাল ডাক্তার দেখাইতে পারতাম না, অহন এই পাসপাতাল হওয়ার ভাল ভালডাক্তার দেহানো যাইবো, সকল পরীক্ষা নিরিক্ষাও এখানে করা যাইবো, আর আমাগোঢাকা বরিশাল যাইতে হইবেনা। হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা জনাব ফিরোজ আলম বলেন, দূর্গম এলাকার সাধারণ মানুষের উন্নত চিকিংসা সেবা প্রদানের লক্ষ্যে এহাসপাতালটি নির্মাণ করা হয়েছে। এ হাসপাতালে মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবা এবংডায়াবেটিক রোগীদের জন্য রয়েছে বিশেষ ওয়ার্ড। এছাড়া এ সব সুবিধা বঞ্চিতমানুষগুলোকে আধুনিক সকল স্বাস্থ্য সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে খুব শিঘ্রইহালপাতালে চালু করা হবে একটি নার্সিং ট্রেনিং সেন্টার যা এলাকার স্বা¯থ্যসেবা সহ কর্মসংস্থানে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনবে বলে তার বিশ্বাস। আর এই দু¯থমানুষগুলোকে নিয়ে তার স্বপ্ন বাস্তবায়নে তিনি সকলের সহযোগীতা ও দোয়া কামনাকরেন। শাহেদা -গফুর- ইব্রাহীম জেনারেল হাসপাতাল ।

ছবি



Share with :

Facebook Twitter